বাংলা ব্যাকরণের কিছু প্রশ্নোত্তর

🌼*বাংলা ব্যাকরণের কিছু প্রশ্নোত্তর*🌼

1) অনুসর্গের অপর নাম পরসর্গ।
2 )জটিল বাক্যের ‘জটিল’ শব্দের অর্থ জট
3) ব্যাকরণে ‘লিঙ্গ’ শব্দের অর্থ চিহ্ন বা লক্ষণ
4 )ব্যাকরণে ‘বচন’শব্দের অর্থ সংখ্যা
5) বাংলা ব্যাকরণে ‘পুরুষ’ শব্দের অর্থ ‘ক্রিয়ার আশ্রয়’
6) ‘ সন্ধি’ শব্দের অর্থ মিলন।
7)সমাস (সন্ধি= সম্+আস, প্রত্যয় = সম্+অস্(ধাতু)+অ) সমাস শব্দের অর্থ সংক্ষেপ
8)ব্যাস ব্যাকের ‘ব্যাস’অর্থ বিস্তৃতভাবে(তাই ব্যাস শব্দটি সমাস শব্দের বিপরীত শব্দ)
9)স্বরভক্তি শব্দের অর্থ স্বর সহযোগে বিভাজন
10 )স্বরভক্তির অপর নামগুলি বিপ্রকর্ষ,মধ্যস্বরাগম
11)অপিনিহিতি শব্দের অর্থ আগে স্থাপন
12)সমীভবনের অপর নাম সমীকরণ,ব্যঞ্জন সংগতি।
13)প্রত্যয় শব্দের অর্থ বিশ্বাস,বোধ,দূঢ়তা।
14)কারক শব্দের অর্থ যে করে ।
15)বর্ণবিপর্যয় এর অপর নাম বিপর্যাস
16)ব্যাকরনের ভাষায় বর্ণ ও অক্ষর আলাদা (যেমন ‘আমাদের’ শব্দে ৭টিবর্ণ আর অক্ষর ৩টি আছে)
17)বিভক্তি শব্দের অর্থ বিশেষভাবে বিভাজন ।
18)দ্বন্দ্ব সমাসের ‘দ্বন্দ্ব’কথার অর্থ যুগ্ম বা জোড়া
19)বহুব্রীহি বলতে বোঝায়, বহুব্রীহি(ধান)আছে যার,সে
20)তৎপুরুষ শব্দের অর্থ সেই পুরুষ
21)কর্মধারয় শব্দের অর্থ কর্ম কে ধারন করে যে
22)উপপদ তৎপুরুষ এর উপপদ শব্দের অর্থ সমীপরর্তী দেশ
23) দ্বিগু শব্দের অর্থ দ্বি(দুই)গো(গরু)-দুইটি গরুর মূল্যে কেনা বস্তু
24)সর্বনাম পদের সর্বনাম শব্দের অর্থ সকলের নাম
25)অব্যয় পদের অব্যয় কথার অর্থ যার ব্যয় বা পরিবর্তন নেই



১/ বাংলা বর্ণমালায় মোট বর্ণ আছে ৫০টি(স্বরবর্ণ ১১টি + ব্যঞ্জণবর্ণ ৩৯টি)।
২/ বাংলা বর্ণমালায় মোট স্বরবর্ণ ১১টি(হ্রস্ব স্বর ৪টি + দীর্ঘ স্বর ৭টি)।
৩/ বাংলা বর্ণমালায় মোট ব্যঞ্জণবর্ণ৩৯টি (প্রকৃত ৩৫টি + অপ্রকৃত ৪ টি)।
৪/ বাংলা বর্ণমালায় পূর্ণমাত্রার যুক্তবর্ণআছে ৩২টি (স্বরবর্ণ ৬টি + ব্যঞ্জণবর্ণ২৬টি)।
৫/বাংলা বর্ণমালায় অর্ধমাত্রাযুক্ত বর্ণআছে ৮টি (স্বরবর্ণ ১টি + ব্যঞ্জণবর্ণ৭টি)।
৬/ বাংলা বর্ণমালায় মাত্রাহীন বর্ণ আছে১০টি (স্বরবর্ণ ৬টি + ব্যঞ্জণবর্ণ ৪টি)।
৭/ বাংলা বর্ণমালায় কার আছে এমনস্বরবর্ণ ১০টি (“অ” ছাড়া)।
৮/ বাংলা বর্ণমালায় ফলা আছে এমনব্যঞ্জণবর্ণ ৫টি (ম, ন, ব, য, র)।
৯/বাংলা বর্ণমালায়স্পর্শধ্বনি/বর্গীয়ধ্বনি আছে ২৫টি (ক থেকে ম পর্যন্ত)।
১০/ বাংলা বর্ণমালায় কন্ঠ/ জিহবামূলীয়ধ্বনি আছে ৫টি (“ক” বর্গীয় ধ্বনি)।
১১/ বাংলা বর্ণমালায় তালব্য ধ্বনি আছে৮টি (“চ” বর্গীয় ধ্বনি + শ, য, য়)।
১২/ বাংলা বর্ণমালায় মূর্ধন্য/ পশ্চাৎদন্তমূলীয় ধ্বনি আছে ৯টি (“ট” বর্গীয়ধ্বনি + ষ, র, ড়, ঢ়)।
১৩/ বাংলা বর্ণমালায় দন্ত্য ধ্বনি আছে৭টি (“ত” বর্গীয় ধ্বনি + স, ল)।
১৪/ বাংলা বর্ণমালায় ওষ্ঠ্য ধ্বনি আছে৫টি (“প” বর্গীয় ধ্বনি)।
১৫/ বাংলা বর্ণমালায় অঘোষ ধ্বনি আছে১৪টি (প্রতি বর্গের ১ম ও ২য় ধ্বনি + ঃ,শ, ষ, স)।
১৬/ বাংলা বর্ণমালায় ঘোষ ধ্বনি আছে১১টি (প্রতি বর্গের ৩য় ও ৪র্থ ধ্বনি+হ)।
১৭/ বাংলা বর্ণমালায় অল্পপ্রাণ ধ্বনিআছে ১৩টি (প্রতি বর্গের ১ম ও ৩য় ধ্বনি+ শ, ষ, স)।
১৮/ বাংলা বর্ণমালায় মহাপ্রাণ ধ্বনিআছে ১১টি (প্রতি বর্গের ২য় ও ৪র্থ ধ্বনি+ হ)।
১৯/ বাংলা বর্ণমালায় নাসিক্য/অনুনাসিক ধ্বনি আছে ৮টি (প্রতি বর্গের৫ম ধ্বনি + ং,ঁ, ও)।
২০/ বাংলা বর্ণমালায় উষ্ম/শিষ ধ্বনি৪টি (শ, ষ, স, হ)।
২১/ বাংলা বর্ণমালায় অন্তঃস্থ ধ্বনি ৪টি(ব, য, র, ল)।
২২/ বাংলা বর্ণমালায় পার্শ্বিক ধ্বনি১টি (ল)।
২৩/ বাংলা বর্ণমালায় কম্পনজাত ধ্বনি১টি (র)।
২৪/ বাংলা বর্ণমালায় তাড়নজাত ধ্বনি২টি (ড়, ঢ়)।
২৫/ বাংলা বর্ণমালায় পরাশ্রয়ী ধ্বনি৩টি (ং, ঃ, ঁ)।
২৬/ বাংলা বর্ণমালায় অযোগবাহ ধ্বনি২টি (ং, ঃ)।
২৭/ বাংলা বর্ণমালায় যৌগিক স্বরজ্ঞাপকধ্বনি ২টি (ঐ, ঔ)।
২৮/ বাংলা বর্ণমালায় যৌগিক স্বরধ্বনি২৫ টি।
২৯/ বাংলা বর্ণমালায় খন্ডব্যঞ্জণ ধ্বনি১টি (ৎ)।
৩০/ বাংলা বর্ণমালায় নিলীন ধ্বনি ১টি(অ)।
৩১/ বাংলা বর্ণমালায় হসন্ত/হলন্ত ।



১. কোন বর্ণের উপরে রেখা দেওয়াকে কী বলে?উত্তর : মাত্রা।
২. বর্ণমালায় ব্যবহৃত মাত্রাহীন বর্ণগুলোর মধ্যে কয়টি ব্যঞ্জনবর্ণ রয়েছে?উত্তর :নয়টি
৩. স্বরবর্ণের সংক্ষিপ্ত রূপকে কী বলা হয়?উত্তর : কার/ সংক্ষিপ্ত স্বর।
৪. কয়টি ব্যঞ্জনবর্ণ ফলা রূপে ব্যবহৃত হতে পারে?উত্তর : ছয়টি।
৫. ঠোঁট ও নাকের ছিদ্রের সাহায্যে উচ্চারিত হয় কোন ধ্বনিটি?উত্তর : ‘ম’।
৬. অঘোষ ‘হ’ ধ্বনির বর্ণরূপ কী?উত্তর : ‘ঃ’।
৭. বাংলা বর্ণমালার কোন বর্ণটি স্বতন্ত্রভাবে উচ্চারিত হয় না?উত্তর : ‘ৎ’।
৮. বাঙালি শিশুরা কোন বর্গের ধ্বনিগুলো আগে শেখে?উত্তর : ‘প’ বর্গের।
৯. ঙ, ঞ, ণ, ন, ম, ং, ঁ ধ্বনিগুলো ইংরেজি করলে কোন বর্ণ লিখতে হয়?উত্তর : N.
১০. বাংলা ভাষায় কয়টি যৌগিক স্বরবর্ণ রয়েছে?উত্তর : দুটি।
১১. আধুনিক বাংলায় যৌগিক স্বরধ্বনিরসংখ্যা কতটি?উত্তর : ২৫টি।
১২. অক্ষর কাকে বলে?উত্তর : কোন শব্দকে একবারই উচ্চারিত করাকে অক্ষর বলে।
১৩. বানান কাকে বলে?উত্তর : ব্যঞ্জনবর্ণের সাথে স্বরবর্ণের যোগ করাকে বানান বলে।
১৪. কোন স্বরবর্ণের সংক্ষিপ্ত রূপ নেই?উত্তর : ‘অ’।
১৫. ধ্বনি উচ্চারণের উৎস কোথায়?উত্তর : ফুসফুস।
১৬. জিহ্বামূল থেকে উচ্চারিত ধ্বনিসমূহের নাম কী?উত্তর : কণ্ঠ বা জিহ্বামূলীয় ধ্বনি।
১৭. ‘হ্ম’ যুক্তাক্ষরটি কোন কোন বর্ণযোগে গঠিত?উত্তর : হ্+ম ।
১৮. ‘ঞ্জ’ যুক্তাক্ষরটি কোন কোন বর্ণযোগে গঠিত?উত্তর : ঞ্+জ।
১৯. ‘জ্ঞ’ যুক্তাক্ষরটি কোন কোন বর্ণযোগে গঠিত?উত্তর : জ্+ঞ।
২০. এক অক্ষরবিশিষ্ট শব্দের উচ্চারণ সবসময় কী হয়?উত্তর : দীর্ঘ।
২১. খণ্ড-‘ত'(ৎ)প্রকৃত প্রস্তাবে কোন বর্ণের বহুরূপ?উত্তর : ‘ত্’।
২২. ‘আহ্বান’-এর প্রকৃত উচ্চারণ লেখ।উত্তর : আওভান।
২৩. যৌগিক স্বরের অপর নাম কী?উত্তর : দ্বিস্বর / সান্ধ্যক্ষর।
২৪. বাংলা বর্ণমালায় মৌলিক স্বরধ্বনি কয়টি?উত্তর : ৭টি।
২৫. ‘ক্ষ্ম’ বর্ণটি বিশ্লেষণ কর।উত্তর : ক্ + ষ্ + ম।
২৬. অনুস্বার (ং) ও বিসর্গ (ঃ) কে কী বর্ণ বলে?উত্তর : অযোগবাহ বর্ণ / পরাশ্রয়ী বর্ণ।
২৭. ‘র’ ধ্বনিকে কী ধ্বনি বলে?উত্তর : কম্পোনজাত ধ্বনি।
২৮. ‘ল’ ধ্বনিকে কী ধ্বনি বলে?উত্তর : পার্শ্বিক ধ্বনি।
২৯. কোন চারটি বর্ণকে উষ্ম বর্ণ বলে?উত্তর : শ, ষ, স, হ।
৩০. কোন ধ্বনি উচ্চারণের সময় স্বরতন্ত্রী বেশি অনুরণিত হয়?উত্তর : ঘোষ ধ্বনি।
৩১. ‘এ’ ধ্বনির বিবৃত উচ্চারণ শব্দের কোথায় পাওয়া যায়?উত্তর : আদিতে।
৩২. ‘নিনাদবর্ণ’ বলতে কোন জাতীয় বর্ণকে বোঝায়?উত্তর : ঘোষ বর্ণ।
৩৩. উচ্চারণের সময় মুখবিবর উন্মুক্তথাকে বলে প্রধানত আ-কে কী ধ্বনি বলা হয়?উত্তর : বিবৃত।
৩৪. কোন দুটি বর্ণকে যৌগিক স্বর বলা হয়?উত্তর : ঐ, ঔ।
৩৫. ধ্বনি পরিবর্তন বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশের আলোচ্য বিষয়?উত্তর : ধ্বনিতত্ত্বে।
৩৬. ‘ধ্বনিবিজ্ঞান ও বাংলা ধ্বনিতত্ত্ব’ গ্রন্থটি কে লিখেছেন?উত্তর : ড. মুহম্মদ আবদুল হাই।
৩৭. ড় এবং ঢ় ধ্বনিকে কী ধ্বনি বলা হয়?উত্তর : তাড়নজাত।
৩৮. পরাশ্রয়ী বর্ণ কয়টি?উত্তর : ৩টি।
৩৯. Vowel Harmony-র বাংলায় স্বরসঙ্গতি নামকরণ করেছেন কে?উত্তর : ড. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়।
৪০. শব্দের ক্ষুদ্রতম একক কী?উত্তর : ধ্বনি।
৪১. ব্যঞ্জনবর্ণের সংক্ষিপ্ত রূপকে কী বলে?উত্তর : ফলা।
৪২. বাংলা ভাষায় মাত্রাহীন বর্ণ কয়টি?উত্তর :নয়টি
৪৩. শ, ষ, স, হ_ এ চারটি বর্ণ উষ্ম বর্ণ হয়েও শিষ ধ্বনি নয় কোন বর্ণ?উত্তর : ‘হ’।
৪৪. ঘোষ মহাপ্রাণ কণ্ঠ ধ্বনি কোনটি?উত্তর : ‘ঘ’।
৪৫. য, র, ল, ব- এ চারটি বর্ণকে কি বলে?উত্তর : অন্তঃস্থ বর্ণ।
৪৬. কম্পনজাত ধ্বনি কোন বর্ণটিকে বলা হয়?উত্তর : র।
৪৭. ‘ঞ্চ’ যুক্তাক্ষরটি কোন কোন বর্ণযোগে গঠিত?উত্তর : ঞ্+চ।
৪৮. কোন তিনটি বর্ণকে অযোগবাহ বর্ণ বলে?উত্তর : ং, ঃ এবং ঁ।
৪৯. কোন চারটি বর্ণে দ্যোদিত ধ্বনি কখনো শব্দের প্রথমে আসে না?উত্তর : ঙ, ং, ঞ, ণ।
৫০. শব্দের ‘অ’ ধ্বনির কয় রকম উচ্চারণ পাওয়া যায়?উত্তর : দুই।
____________________________________________________________________________________


🌼 ভাষা 🌼
১. ভাষার মূল উপাদান কী? উত্তর : ধ্বনি।
২. ভাষার জগতে বাংলার স্থান কোথায়? উত্তর : চতুর্থ।
৩. কোন ভাষা হতে বাংলা ভাষার জন্ম হয়? উত্তর : বঙ্গকামরূপী।
৪. বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের প্রাচীন নিদর্শন কোনটি?উত্তর : চর্যাপদ।
৫. সাধু ও চলিত ভাষার মূল পার্থক্য কোন পদে বেশি দেখা যায়? উত্তর : ক্রিয়া ও সর্বনাম পদে।
৬. সাধু ও চলিত ভাষার মিশ্রণের ফলে কোন দোষ হয়? উত্তর : গুরুচণ্ডালী।
৭. সাধু ভাষার বৈশিষ্ট্য কোনটি? উত্তর : গুরুগম্ভীর।
৮. বিভক্তিহীন নাম শব্দকে কী বলে? উত্তর : প্রাতিপদিক।
৯. ভাষার কোন রীতি নাটকের সংলাপ ও বক্তৃতার অনুপযোগী? উত্তর : সাধুরীতি।
১০. কথাবার্তা, বক্তৃতা ও নাটকের সংলাপের জন্য কোন ভাষা উপযোগী? উত্তর : চলিত।
১১. বাংলা ভাষায় চলিতরীতির বিশেষ বৈশিষ্ট্য কোনটি? উত্তর : কৃত্রিমতাবর্জিত।
১২. বাংলা ভাষার প্রচলিত বিদেশি শব্দের ভাবানুবাদমূলক প্রতিশব্দকে কী বলে? উত্তর : পারিভাষিক শব্দ।
১৩. বাংলা সাহিত্যে চলিত রীতির প্রবর্তক কে? উত্তর : প্রমথ চৌধুরী।
১৪. কোন ভাষারীতির পদবিন্যাস সুনিয়ন্ত্রিত ও সুনির্দিষ্ট? উত্তর : সাধু ভাষা।
১৫. বাংলা ভাষার রূপ কয়টি? উত্তর : দুটি।
১৬. আঞ্চলিক ভাষার অপর নাম কী? উত্তর : উপভাষা।
১৭. বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের মধ্যযুগের প্রথম নিদর্শণ কোনটি? উত্তর : শ্রীকৃষ্ণকীর্তন।
১৮. মানুষের কন্ঠনিঃসৃত বাক সংকেতের সংগঠনকে কী বলে? উত্তর : ভাষা।
১৯. সব মানুষের ভাষা কী দ্বারা সৃষ্ট হয়? উত্তর : বাগযন্ত্র।
২০. দেশ, কাল ও পরিবেশভেদে কিসের পার্থক্য ও পরিবর্তন ঘটে? উত্তর : ভাষার।
২১. চন্দ্র, সূর্য, নক্ষত্র, ধর্ম, পাত্র, মনুষ্য ইত্যাদি কোন ধরণের শব্দ? উত্তর : তৎসম।
২২. কুলা, গঞ্জ, টোপর, ডাব, ডিঙ্গা ইত্যাদি কোন ধরণের শব্দ? উত্তর : দেশি।
২৩. নামায, গুনাহ, দোযখ, বেহেশত, রোজা ইত্যাদি কোন ধরণের শব্দ? উত্তর : ফারসি শব্দ।
২৪. রিক্সা, হারিকিরি ইত্যাদি কোন ধরণের শব্দ? উত্তর : জাপানি।
২৫. চা, চিনি, কোন ধরণের শব্দ? উত্তর : চীনা।


____________________________________________________________________________________


প্রশ্ন : পাল ও যৌথ শব্দ দুটি কিসের বহুবচনে ব্যবহৃত হয়? উত্তর : জন্তুর।
প্রশ্ন : পদাশ্রিত নির্দেশকের অপর নাম কি? উত্তর : পদাশ্রিত অব্যয়।
প্রশ্ন : কি উপমান কর্মধারয় সমাসের উদাহরন? উত্তর : ঘনশ্যাম।
প্রশ্ন : কোন সমাজে পূর্বপদ বা পরপদ কোন পদের অর্থের প্রাধান্য না বুঝিয়ে অন্য পদের অর্থ প্রাধান্য রক্ষিত হয়? উত্তর : বহুব্রাহি।
প্রশ্ন : চতুর্থী তৎপুরুষ সমাজের উদাহরণ কি? উত্তর : ডাকমাশুল।
প্রশ্ন : বিজ্ঞান শব্দের বি উপসর্গ কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে? উত্তর : বিশেষ।
প্রশ্ন : যেসব ধাতু আর বিশ্লেষণ করা সম্ভব নয়, সেসব ধাতুকে কী বলে? উত্তর : মৌলিক ধাতু।
প্রশ্ন : উক্তির প্রকৃতি প্রত্যয় কোনটি? উত্তর : বচ্+ক্তি।
প্রশ্ন : বৈজ্ঞানিক শব্দে কী অর্থে ষ্ণিক প্রত্যয় যুক্ত হয়েছে? উত্তর : দক্ষ বা বেত্তা।
প্রশ্ন : কোন শব্দটিতে ‘সই’ প্রত্যয় হিসেবে ব্যবহৃত হয়নি? উত্তর : নামসই।
প্রশ্ন : মিশ্র শব্দের উদাহরণ কি? উত্তর : চৌহদ্দি।
১. বাক্যতত্ত্বের আরেক নাম কি? উত্তর : পদক্রম।
২. বাংলায় বিরামচিহ্ন কয়টি? উত্তর : ১২টি।
৩. প্রাচীন যুগের স্থায়ীকাল কত? উত্তর : ৬৫০-১২০০।
৪. হরতাল কোন ভাষার শব্দ? উত্তর : গুজরাটি।
৫. ড় ও ঢ় ধ্বনি দুটোকে কী ধ্বনি বলে? উত্তর : তাড়নজাত।
৬. আমি আজ জ্বর জ্বর বোধ করছি-এখানে দ্বিরুক্তি শব্দটি কি অর্থ প্রকাশ করে? উত্তর : সামান্য।
৭. নিয়ম অনুযায়ী সন্ধি হয় না কি? উত্তর : কুলটা।
৮. বাংলা ভাষায় প্রচলিত বিদেশী শব্দের ভাবানুবাদের প্রতিশব্দকে কী বলে? উত্তর : পারিভাষিক শব্দ।
৯. প্রত্যয় সাধিত শব্দ কোনটি? উত্তর : সফল।
১০. এ ধ্বনির বিবৃত উচ্চারণ কেবল শব্দের কোন অংশে পাওয়া যায়? উত্তর : আদিতে।
১১. নিদাঘ শব্দের নি উপসর্গ কী অর্থদ্যোততা সৃষ্টি করে? উত্তর : আতিশায্য।
১২. তার চুল পেকেছে, কিন্তু বুদ্ধি পাকেনি-এটা কোন বাক্য? উত্তর : যৌগিক বাক্য।
১৩. নিখাদ অর্থে কাঁচা শব্দের ব্যবহার কোনটি? উত্তর : কাঁচা সোনা।
১৪. কর্মকর্তৃবাচ্যের উদাহরণ কোনটি? উত্তর : বাঁশি বেজে।
১৫. অর্থসংগতি রক্ষার জন্য পরোক্ষ উক্তিকি কিসের পরিবর্তন করতে হয়? উত্তর : সর্বনাম ও বিশেষ্য পদের।
১৬. লোকটি হাড়ে হাড়ে শয়তান- এখানে হাড়ে হাড়ে শব্দ কী অর্থে প্রকাশ পেয়েছে? উত্তর : আধিক্য।
১৭. হস্তী শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি? উত্তর : দ্বিপ।
১৮. কোনটি লিঙ্গান্তর হয় না? উত্তর : কবিরাজ।
১৯. রাজার রাজার দুয়ারে হতি বাঁধা-কোন অধিকরন কারক? উত্তর : আধারাধিকরণ।
২০. কোন শব্দগুলোর ণ-ত্ব বিধানের বাইরে ণ-এর ব্যবহার হয়েছে? উত্তর : বেণু, বীণা, কর্ণ।
২১. হংসডিম্বর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি? উত্তর : হংসীর ডিম্ব।
২২. পরের ই-কার ও উ-কার উচ্চারিত হওয়ার রীতিকে বলে- উত্তর : অপিনিহিতি।
২৩. শুক শব্দের স্ত্রী বাচক শব্দ কী হবে? উত্তর : সারী।
২৪. সাতাশ যদি একশ সাতাশ হতো-এখানো নিত্যবৃত্ত অতীত কী অর্থে ব্যবহৃত? উত্তর : অসম্ভব।
____________________________________________________________________________________


🌼বাচ্য ও উক্তি🌼
১. বাচ্য কত প্রকার? উত্তরঃ তিন প্রকার।
২. বাক্যের বিভিন্ন ধরনের প্রকাশভঙ্গিকে কী বলে? উত্তরঃ বাচ্য।
৩. সুতি কাপড় অনেক দিন টিকে’Ñএ বাক্যটি কিসের উদাহরণ? উত্তরঃ কর্মকর্তৃবাচ্য।
৪. কোন বাচ্যের ক্রিয়া সর্বদা নাম পুরুষ? উত্তরঃ ভাববাচ্যের ।
৫. ‘আমা কর্তৃক ইহা লিখিত হইয়াছে’Ñকোন বাক্যে? উত্তরঃ কর্মবাচ্য।
৬. কি বিপদেই পড়লাম’ এর বাচ্য পরিবর্তন কি হবে? উত্তরঃ খুব বিপদে পড়েছি।
৭. কোনটি ভাববাচ্যের বাক্য? উত্তরঃ আজ আর তোমার খাওয়া হবে না।
৮. কর্মবাচ্যের বাক্যকে কর্তৃবাচ্যে পরিণত করতে হলে কর্তায় কোন বিভক্তি যুক্ত হয়? উত্তরঃ প্রথমা ।
৯. ‘তুমি খেয়েছ’ এর ভাববাচ্য কোনটি? উত্তরঃ তোমার খাওয়া হয়েছে।
১০. ‘তুমি অভিনয় করেছ’ কোন বাচ্যের বাক্য? উত্তরঃ কর্তৃবাচ্য ।
১১. তোমাকেই ঢাকা যেতে হবে’-এটি কোন বাচ্যের উদাহরণ? উত্তরঃ ভাববাচ্য।
১২. ‘বিদ্বানকে সবাই সম্মান করে’ বাক্যটির কর্মবাচ্যে কি হবে? উত্তরঃ বিদ্বান সকলের দ্বারা সমাদৃত হন।
১৩. ‘যে বাক্য কর্তা প্রধানরূপে প্রতীয়মান হয় এবং ক্রিয়াপদ কর্তাকে অনুসরণ করে তাকেÑউত্তরঃ কর্তৃবাচ্য বলে।
১৪. ‘মনিকা ফুল তোলে’। কোন বাচ্যের উদাহরণ? উত্তরঃ কর্তৃবাচ্য।
১৫. ‘বাঁশি বাজে’ এর বাচ্য পরিবর্তন কী হবে? উত্তর : বাঁশি বাজানো হচ্ছ।
১৬. কোনটি কর্মকর্তাবাচ্যের উদাহরণ? উত্তরঃ মেলা বসেছে।
১৭. কোথায় থাকা হয়?-এটি কোন বাচ্যের উদাহরণ? উত্তরঃ ভাববাচ্যের ।
উত্তরগুলো মিলিয়ে নাও : ১. খ ২. খ ৩. খ ৪. গ ৫. গ ৬. ক
____________________________________________________________________________________


১. ‘উষ্ণ’ এর কঠিন বর্ণ দুটি কি? উত্তর : ষ+ণ।
২. ধ্বনি উৎপাদনের মূল উপকরণ বা উচ্চারন কি? উত্তর : জিহ্বা ও ওষ্ঠ
৩. কোন স্বরবর্ণের সংক্ষিপ্ত রূপ নেই? উত্তর : অ।
৪. স্বেচ্ছা এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কী? উত্তর : স্ব+ইচ্ছা।
৫. পতঞ্জলি-এর সন্ধি বিচ্ছেদ কী? উত্তর : পতৎ+অঞ্জলি।
৬. দ্যুলোক এর সন্ধি বিচ্ছেদ কি? উত্তর : দিব+লোক।
৭. গবেষণা এর সন্ধি বিচ্ছেদ কি? উত্তর : গো+এষণা।
৮. নিপাতনে সিদ্ধ সন্ধি কি? উত্তর : বনস্পতি।
৯. অতএব এর সন্ধি বিচ্ছেদ কি? উত্তর : অতঃ+এব।
১০. খাঁটি বাংলায় কোন সন্ধি নেই? উত্তর : বিসর্গ সন্ধি।
১১. জলাতঙ্ক শব্দের সন্ধি বিচ্ছেদ কি? উত্তর : জল+আতঙ্ক।
১২. শব্দের বা পদের মূল অর্থময় অংশকে কি বলে? উত্তর : প্রকৃতি।
১৩. শব্দের শুরুতে কী বসে? উত্তর : উপসর্গ।
১৪. যে গোষ্ঠীটি বাঙালি জাতির গোড়াপত্তন করেছে তাদের বলা কি হয়? উত্তর : দ্রাবিড়।
১৫. প্রাকৃত ভাষার কোন দুটি রূপ রয়েছে? উত্তর : মাগধী ও গোড়ী।
১৬. তামিল ভাষা কোন ভাষা থেকে এসেছে? উত্তর : দ্রাবিড়।
১৭. আলমারি, বালতি এগুলো কোন ভাষার শব্দ? উত্তর : ফরাসি।
১৮. একটি মিশ্র শব্দ লেখ? উত্তর : হেডমাস্টার।
১৯. রেস্তোরাঁ ডিপো কোন ভাষার শব্দ? উত্তর : তুর্কি।
২০. খ্রিষ্টাব্দ-এটিতে কোন কোন ভাষার মিশ্রণ হয়েছে? উত্তর : ইংরেজী+তৎসম।
২১. পেট কোন ভাষার শব্দ? উত্তর : তামিল।
২২. পয়গম্বর কোন ভাষার শব্দ? উত্তর : ফারসি।
২৩. গ্রীক ভাষার একটি শব্দ লেখ? উত্তর : দাম।
২৪. জলধি এটি কোন শব্দ? উত্তর : যৌগিক।
২৫. দৌহিত্র কোন শব্দ? উত্তর : যৌগিক।
____________________________________________________________________________________


প্রশ্ন: ‘ক্রিয়ার কাল’ ব্যাকরণের কোন অংশের আলোচ্য বিষয়? উত্তর: বাক্যতত্ত্ব।
প্রশ্ন: রূপতত্ত্বের অপর নাম কী? উত্তর: শব্দতত্ত্ব।
প্রশ্ন: প্রত্যয় ও সমাস ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তর: শব্দতত্ত্বে।
প্রশ্ন: ক্রিয়ার কাল ও পুরুষ ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তর: রূপতত্ত্বে।
প্রশ্ন: ব্যাকরণের ‘রূপতত্ত্ব’ অংশে আলোচিত হয় কী কী? উত্তর: শব্দ প্রকরণ, পদ প্রকরণ, লিঙ্গ, বচন, শব্দরূপ, ক্রিয়ার কাল, পুরুষ, ধাতুরূপ, পদক্রম, পদ পরিবর্তন।
প্রশ্ন: ক্রিয়ামূল, ক্রিয়ার কাল ও পুরুষ ইত্যাদি ব্যাকরণের কোন অংশের আলোচ্য বিষয়? উত্তর: রূপতত্ত্ব।
প্রশ্ন: ‘বচন, লিঙ্গ, কারক, সমাস’ ব্যাকরণের কোন অংশের আলোচ্য বিষয়? উত্তর: রূপতত্ত্ব।
প্রশ্ন: বাক্যতত্ত্বের অপর নাম কী? উত্তর: পদক্রম।
____________________________________________________________________________________


ধ্বনিতত্ত্ব ও ধ্বনির পরিবর্তন
প্রশ্ন: বাংলা বর্ণমালার উৎস কী? উত্তর: ব্রাহ্মীলিপি।
প্রশ্ন: মুখবিবরের কোথাও বাধা না পেয়ে কোন ধ্বনি উচ্চারিত হয়? উত্তর: স্বরধ্বনি।
প্রশ্ন: কোন ধ্বনি উচ্চারণের সময় ফুসফুসতাড়িত বাতাস মুখবিবরের কোথাও না কোথাও বাধা পায়? উত্তর: ব্যঞ্জনধ্বনি।
____________________________________________________________________________________


১। ব্যাকরণ শব্দের ব্যুৎপত্তিগত অর্থ কী? উত্তর বিশেষভাবে বিশ্লেষণ।
২। ব্যাকরণ শব্দের বিশ্লেষিত রূপ কী? উত্তর বি+আ+কৃ+অন।
৩। যে শাস্ত্রে বাংলা ভাষার বিভিন্ন উপাদানের গঠনপ্রকৃতি ও স্বরূপ বিশ্লেষিত হয় এবং এদের সম্পর্ক ও সুষ্ঠু প্রয়োগবিধি আলোচিত হয়, তাকে কী বলে? উত্তর ব্যাকরণ ।
৪। ব্যাকরণের আলোচ্য বিষয় কয়টি? উত্তরঃ চারটি।
৫। ‘সন্ধি’ ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তরঃ ধ্বনিতত্ত্ব ।
৬। সমাস, কারক, প্রত্যয় ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তরঃ শব্দতত্ত্ব ।
৭। রূপতত্ত্বের অপর নাম কী? উত্তরঃ শব্দতত্ত্ব।
৮। ‘ণত্ব ও ষত্ব বিধান’ ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তরঃ ধ্বনিতত্ত্ব।
৯। বাক্যতত্ত্বের অপর নাম কী? উত্তরঃ পদক্রম।
১০। ব্যকরণের কাজ কী? উত্তরঃ ভাষার অভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলা রক্ষা করা।
১১। বিভক্তিহীন নাম শব্দকে কী বলে? উত্তর প্রাতিপদিক ।
১২। অর্থতত্ত্বের আলোচ্য বিষয় কোনটি? উত্তরঃ গৌণার্থ
১৩। বাক্যতত্ত্বের আলোচ্য বিষয় কোনটি? উত্তরঃ বাচ্য।
১৪। ‘উক্তি’ ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়? উত্তরঃ বাক্যতত্ত্ব ।
১৫। সাধিত শব্দ কত প্রকার? উত্তরঃ দুই ।
১৬। শব্দ গঠনের উদ্দেশ্যে নাম এবং ক্রিয়া প্রকৃতির পরে যে শব্দাংশ যুক্ত হয় তাকে কী বলে? উত্তরঃ প্রত্যয়।
১৭। যে শব্দকে বা কোনো শব্দের অংশকে আর কোনো ক্ষুদ্রতর অংশে ভাগ করা যায় না, তাকে কী বলে? উত্তর প্রকৃতি।
১৮। হাতল, মুখর কোন প্রকৃতির উদাহরণ? উত্তরঃ নাম প্রকৃতির
১৯। ক্রিয়া প্রকৃতির উদাহরণ কোনটি? উত্তর চলন্ত
২০। লিখিত কোন প্রত্যয়ের উদাহরণ? উত্তরঃ ক্রিয়া প্রত্যয়
____________________________________________________________________________________


১। পাশাপাশি অবস্থিত দুটো ধ্বনির মিলনের ফলে যদি এক ধ্বনি সৃষ্টি হয় তবে তাকে কী বলে? উত্তরঃ সন্ধি ।
২। সন্ধি শব্দের অর্থ কী? উত্তর মিলন।
৩। সন্ধিতে কিসের মিলন ঘটে? উত্তরঃ ধ্বনির ।
৫। সন্ধিতে কত ধরনের ধ্বনির মিলন ঘটে? উত্তরঃ চার।
৬। বাংলা সন্ধি কত প্রকার? উত্তরঃ দুই ।
৭। স্বরধ্বনির সঙ্গে স্বরধ্বনির মিলনে যে সন্ধি হয়, তাকে কোন সন্ধি বলে? উত্তর স্বরসন্ধি ।
৮। স্বরে আর ব্যঞ্জনে, ব্যঞ্জনে আর স্বরে কিংবা ব্যঞ্জনে ব্যঞ্জনে যে সন্ধি হয়, তাকে কোন সন্ধি বলে? উত্তর ব্যঞ্জনসন্ধি।
৯। তৎসম শব্দের সন্ধি কয় প্রকার? উত্তরঃ তিন প্রকার।
১০। নবান্ন এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি? উত্তরঃ নব+অন্ন ।
১১। মরূদ্যান এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি? উত্তরঃ মরু+উদ্যান।
১২। গো+এষণা এর সঠিক সন্ধি কোনটি? উত্তরঃ গবেষণা ।
১৩। ইত্যাদি কোন সূত্রের সন্ধি? উত্তরঃ ই+আ।
১৪। বিসর্গ (:) এর সঙ্গে স্বরধ্বনি কিংবা ব্যঞ্জনধ্বনির মিলনে যে সন্ধি হয় তাকে কোন সন্ধি বলে? উত্তর বিসর্গ সন্ধি।
১৫। বিসর্গ সন্ধি কত প্রকার? উত্তরঃ দুই।
১৬। র-জাত বিসর্গ সন্ধির উদাহরণ কোনটি? উত্তরঃ অন্তর্গত।
১৭। স-জাত বিসর্গ সন্ধির উদাহরণ কোনটি? উত্তরঃ সমস্কার।
১৮. নীরস এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি? উত্তরঃ নিঃ+রস ।
১৯. কোন সন্ধিটির ক্ষেত্রে বিসর্গ লোপ পায় না? উত্তরঃ মনঃ+কষ্ট ।
২০. সুবন্ত সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি? উত্তরঃ সুপ্+অন্ত.।
____________________________________________________________________________________


প্রশ্ন: ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে স্বরবর্ণ মিলে কোন সন্ধি হয়? উত্তর: ব্যঞ্জনসন্ধি।
প্রশ্ন: ‘ঈ’কারের পর ‘ঈ’কার মিলে যে ‘ঈ’কার হয় তার উদাহরণ কী? উত্তর: দিল্লীশ্বর।
প্রশ্ন: ‘গোষ্পদ’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কী হবে? উত্তর: গো+পদ।
প্রশ্ন: স্বরবর্ণের সঙ্গে স্বরবর্ণের মিলনকে কী সন্ধি বলে? উত্তর: স্বরসন্ধি।
প্রশ্ন: ‘মুখচ্ছবি’ সন্ধির কোন নিয়মে পড়ে? উত্তর: স্বরধ্বনি+ব্যঞ্জনধ্বনি।
প্রশ্ন: উপরি+উপরি সন্ধিসাধিত শব্দ কোনটি? উত্তর: উপর্যুপরি।
প্রশ্ন: ‘রাজ্ঞী’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ নিচের কোনটি? উত্তর: রাজ+নী।
প্রশ্ন: ‘বৃষ্টি’র সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: বৃষ+তি।
প্রশ্ন: ‘ষোড়শ’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: ষট+দশ।
প্রশ্ন: ‘তন্বী’ শব্দটির সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: তনু+ঈ।
প্রশ্ন: গায়ক-এর সন্ধি কোনটি? উত্তর: গৈ+অক।
প্রশ্ন: ‘সঞ্চয়’ শব্দের সঠিক সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: সম+চয়।
প্রশ্ন: ‘পর্যন্ত’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: পরি+অন্ত।
প্রশ্ন: ‘পশু+অধম’-এর শুদ্ধ সন্ধি কী? উত্তর: পশ্বধম।
প্রশ্ন: মূর্ধণ্য শিশ ধ্বনি ‘ষ’-এর পর অঘোষিত মহাপ্রাণ ‘থ’ ধ্বনি থাকলে উভয়ে মিলে কী হয়? উত্তর: ষ্ঠ।
প্রশ্ন: উৎ+ছেদ = ? উত্তর: উচ্ছেদ।
প্রশ্ন: দিগন্ত = ? উত্তর: দিক্+অন্ত।
প্রশ্ন: বিসর্গ সন্ধিকে সাধারণত ভাগ করা হয়েছে কয় ভাগে? উত্তর: দুই ভাগে।
প্রশ্ন: যে ক্ষেত্রে উচ্চারণের আয়াস লাঘব হয় কিন্তু ধ্বনিমাধুর্য রক্ষিত হয় না, সে ক্ষেত্রে কিসের বিধান নেই? উত্তর: সন্ধির।
প্রশ্ন: ‘সন্ধি’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কী? উত্তর: সম+ধি।
প্রশ্ন: ‘মনীষা’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: মনস+ইষা।
প্রশ্ন: ‘নাবিক’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: নৌ+ইক।
প্রশ্ন: কৃষ্টি শব্দের সঠিক সন্ধিবিচ্ছেদ কী? উত্তর: কৃষ+তি।
প্রশ্ন: ‘ছিন্ন’ শব্দের প্রকৃতি ও প্রত্যয় কী? উত্তর: ছিদ+ক্ত।
প্রশ্ন: সন্ধির উদ্দেশ্য কী? উত্তর: ধ্বনিগত মাধুর্য সম্পাদন।
প্রশ্ন: ‘স্বাগত’ শব্দের সঠিক সন্ধিবিচ্ছেদ কী? উত্তর: সু+আগত।
প্রশ্ন: সন্ধির প্রধান সুবিধা কী? উত্তর: উচ্চারণে সুবিধা।
প্রশ্ন: যুক্ত ব্যঞ্জনধ্বনি স্ত, স্থ পরে থাকলে পূর্ববর্তী বিসর্গ কেমন থাকে? উত্তর: অবিকৃত থাকে।
প্রশ্ন: ‘শীতার্ত’ শব্দটির সঠিক সন্ধি কী? উত্তর: শীত+ঋত।
প্রশ্ন: নিপাতনে সিদ্ধ সন্ধি কোনটি? উত্তর: একাদশ।
প্রশ্ন: ‘ষষ্ঠ’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি?উত্তর: ষষ্+থ।
প্রশ্ন: ‘পরীক্ষা’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: পরি+ঈক্ষা।
প্রশ্ন: সংস্কার শব্দটির সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি? উত্তর: সম+কার।
____________________________________________________________________________________


পুরুষ ও স্ত্রীবাচক শব্দ
প্রশ্ন: সাধারণ অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ কী? উত্তর: শিক্ষিকা/খুকী/পাগলী/বালিকা।
প্রশ্ন: কোনটি পত্নী অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ? উত্তর: দাদি/চাচি/মামি/ভাবি।
প্রশ্ন: বাংলা ব্যাকরণ কোন পদে সংস্কৃত লিঙ্গের নিয়ম মানে না? উত্তর: বিশেষণ পদে।
প্রশ্ন: কোন শব্দগুলোর স্ত্রীবাচক হয় না? উত্তর: কবিরাজ/ঢাকী/কৃতদার।
প্রশ্ন: কোনগুলো নিত্য স্ত্রীবাচক শব্দ? উত্তর: সতিন, সৎমা, সধবা (খাঁটি বাংলা)।
প্রশ্ন: নিত্য স্ত্রীবাচক শব্দ কোনটি? উত্তর: কুলটা, বিধবা, সপত্নী, ত্রয়ো, দাই।
প্রশ্ন: কোনটির আগে স্ত্রীবাচক শব্দ যোগ করে লিঙ্গান্তর করতে হয়? উত্তর: কবি, শিল্পী, পুলিশ, কর্মী।
প্রশ্ন: নাটিকা, মালিকা, পুস্তিকা, গীতিকা কোন অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ? উত্তর: ক্ষুদ্রার্থে।
প্রশ্ন: কোন শব্দগুলোর স্ত্রীবাচক ভিন্ন রকম? উত্তর: বিদ্বান, সম্রাট, রাজা, যুবক।
প্রশ্ন: বিশেষ্যের পরে কোনটির স্ত্রীবাচক হয় না? উত্তর: বিধেয় বিশেষণের।
প্রশ্ন: বৃহদার্থে স্ত্রীবাচক শব্দ কোনগুলো? উত্তর: অরণ্যানী, হিমানী।
প্রশ্ন: জাতি বা শ্রেণীবাচক অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ কোনগুলো? উত্তর: অজা, ক্ষত্রিয়া, ব্রাহ্মণী, বৈষ্ণবী।
প্রশ্ন: পুরুষবাচক শব্দের শেষে ‘তা’ থাকলে স্ত্রীবাচকে কী হয়? উত্তর: ত্রী (নেতা-নেত্রী)।
প্রশ্ন: কুলি, গুরু, শুক, মরদ শব্দগুলোর স্ত্রীবাচক যথাক্রমে কী? উত্তর: কামিন, গুর্বী, সারী, জেনানা।
প্রশ্ন: দ্বিরুক্ত শব্দ কয় প্রকার? উত্তর: তিন প্রকার।
প্রশ্ন: কোন বাক্যে ক্রিয়া বিশেষণের দ্বিরুক্তি হয়েছে? উত্তর: তোমার নেই নেই ভাব গেল না।
প্রশ্ন: আমি আজ জ্বর জ্বর বোধ করছি— এখানে দ্বিরুক্তিটির অর্থ কী? উত্তর: সামান্য।
প্রশ্ন: কোন দ্বিরুক্তিটি অন্তঃস্বরের পরিবর্তন করে গঠিত হয়েছে? উত্তর: মারামারি/হাতাহাতি/জেদাজেদি।
প্রশ্ন: ধ্বনি ব্যঞ্জনা বোঝাতে দিরুক্তির উদাহরণ কী? উত্তর: বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর।
প্রশ্ন: বিভক্তিযুক্ত পদের দুবার ব্যবহারকে কী বলা হয়? উত্তর: পদাত্মক দ্বিরুক্তি।
প্রশ্ন: ডেকে ডেকে হয়রান হয়েছি— ক্রিয়াবাচক শব্দের এই দ্বিরুক্তিটি কী অর্থ প্রকাশ করে? উত্তর: পৌনঃপুনিকতা।
প্রশ্ন: কোনটি বস্তুর ধ্বনির অনুকার? উত্তর: হু হু (বাতাসের শব্দ)।
প্রশ্ন: দ্বিরুক্তিটি ধ্বনাত্মক কী? উত্তর: শনশন/মিউমিউ/টাপুরটুপুর/ঝমঝম।
প্রশ্ন: দ্বিরুক্তি গঠনের সময় আদিস্বরের পরিবর্তন হয়েছে কোনটিতে? উত্তর: চুপচাপ/মিটমাট/জারিজুরি।
প্রশ্ন: রাশি রাশি ধন, ধামা ধামা ধান-এর দ্বিরুক্তিদ্বয় কোন অর্থ প্রকাশ করে? উত্তর: আধিক্য।
প্রশ্ন: বৃষ্টির ঝমঝমানি আমাদের অস্থির করে তোলে— এ বাক্যের দ্বিরুক্তিটি কোন পদ? উত্তর: বিশেষ্য।
প্রশ্ন: সমার্থক বা একার্থক সহচর শব্দযোগে গঠিত দ্বিরুক্তি কোনগুলো? উত্তর: চালচলন, রীতিনীতি, বনজঙ্গল, ভয়ডর।
প্রশ্ন: একই শব্দ ঈষৎ পরিবর্তন করে দ্বিরুক্ত গঠনের রীতিকে কী বলে? উত্তর: যুগ্মরীতি।
প্রশ্ন: পদাত্মক দ্বিরুক্তি কয়ভাবে গঠিত হয়? উত্তর: দুভাবে।
____________________________________________________________________________________



সংখ্যাবাচক শব্দ
প্রশ্ন: সংখ্যাবাচক শব্দ কয় প্রকার? উত্তর: চার প্রকার।
প্রশ্ন: কোনটি ক্রমবাচক বা পূরণবাচক সংখ্যা? উত্তর: সপ্তম/নবম।
প্রশ্ন: বাংলা ভাষার তারিখবাচক শব্দগুলোর প্রথম চারটি কোন ভাষার নিয়মে সাধিত? উত্তর: হিন্দি।
প্রশ্ন: ন্যূনতাবাচক সংখ্যা শব্দ কোনগুলো? উত্তর: চৌথা, সিকি, পোয়া, তেহাই, আধা।
প্রশ্ন: দশ, এগার, বার— কোন ধরনের সংখ্যাবাচক শব্দ? উত্তর: গণনা বা পরিমাণবাচক।
____________________________________________________________________________________



১. ক্রিয়া যে সময় ঘটে সে সময়কে কী বলে? উত্তর: গ. ক্রিয়ার কাল
২. কাল কাকে বলে? উত্তর: ক. ক্রিয়া সংঘটনের সময়কে
৩. ক্রিয়ার কাল কত প্রকার? উত্তর: গ. তিন প্রকার
৪. প্রত্যেক কাল আবার কয় ভাগে বিভক্ত? উত্তর: ঘ. চার প্রকার
৫. ‘গল্পটি আমি মায়ের মুখে শুনেছি’—বাক্যস্থিত ক্রিয়াটি কোন কাল নির্দেশ করে? উত্তর: খ. পুরাঘটিত বর্তমান
৬. কোনটি পুরাঘটিত বর্তমান কালের উদাহরণ? উত্তর: খ. দেখিতে গিয়াছি পর্বত মালা।
৭. ‘এ বছর আমি এসএসসি পরীক্ষায় অবতীর্ণ হয়েছি’—এ বাক্যের ক্রিয়াপদটি কোন কালের? উত্তর: খ. পুরাঘটিত বর্তমান
৮. যে ক্রিয়া বরাবর হয় বা এখন হচ্ছে, তার কালকে— উত্তর: ক. বর্তমান কাল
৯. ইতিহাসের ঘটনা বর্ণনায় অতীত কালের ক্রিয়া নিত্য বর্তমান হিসেবে ব্যবহূত হলে, তাকে কোন কাল বলে? উত্তর: গ. ঐতিহাসিক বর্তমান কাল
১০. ‘বসন্তের হাওয়া বইছে’—কোন কালের উদাহরণ? উত্তর: গ. ঘটমান বর্তমান
১১. কোনটি ঘটমান বর্তমান কালের উদাহরণ নয়? উত্তর: ক. দিকে দিকে আগুন জ্বলছে
১২. তখন আমরাও খেলতাম—কোন কালের উদাহরণ? উত্তর: ঘ. নিত্যবৃত্ত অতীত কাল
১৩. যে ক্রিয়া অতীত কালে চলেছিল এবং তখনো শেষ হয়নি এরূপ বোঝায়, তার কালকে কী বলে? উত্তর: ঘ. ঘটমান অতীত
১৪. ‘সে পড়ছিল’—কোন কাল নির্দেশ করে? উত্তর: ঘ. ঘটমান অতীত
১৫. যে ক্রিয়া আগেই শেষ হয়ে গেছে, তাকে বলে— উত্তর: ক. পুরাঘটিত অতীত
১৬. পুরাঘটিত অতীত কালের উদাহরণ কোনটি? উত্তর: ঘ. সব কয়টি
১৭. যে ক্রিয়া অতীত কালে সব সময় ঘটত, তার কালকে কী বলে? উত্তর: ক. নিত্যবৃত্ত অতীত
১৮. তন্বী বেড়াতে গেলে খুকী খুশি হতো—কোন অতীত কালের উদাহরণ? উত্তর: ক. নিত্যবৃত্ত অতীত।
১৯. অতীত কালের অভ্যাস বোঝাতে কোন কাল হয়? উত্তর: ক. নিত্যবৃত্ত অতীত।
২০. ‘তিনি প্রতিদিন এখানে আসতেন।’ এ বাক্যে ‘আসতেন’ ক্রিয়াটি কোন কালের? উত্তর: ঘ. নিত্যবৃত্ত অতীত
২১. অতীত কালে যে ক্রিয়া সাধারণত ‘অভ্যস্ততা’ অর্থে ব্যবহূত হয়, তাকে কোন কাল বলে? উত্তর: খ. নিত্যবৃত্ত অতীত
২২. কোন বাক্যে সম্ভাবনা প্রকাশে নিত্যবৃত্ত অতীত কালের বিশিষ্ট ব্যবহার হয়েছে? উত্তর: গ. তুমি যদি যেতে তবে ভালোই হতো
২৩. নিত্যবৃত্ত অতীত কালের উদাহরণ কোনটি? উত্তর: গ. আমি সেখানে যেতাম।
___________________________________________________________________________________



ণ-ত্ব বিধান ও ষ-ত্ব বিধান
প্রশ্ন: ট-বর্গীয় ধ্বনির আগে কোনটি ব্যবহূত হয়? উত্তর: ণ।
প্রশ্ন: ঋ, র, ষ-এর পরে কী হয়? উত্তর: ণ।
প্রশ্ন: কোনজাতীয় শব্দে ‘ষ’-এর ব্যবহার হয় না? উত্তর: তদ্ভব।
প্রশ্ন: কোনগুলো ‘ষ’-ত্ব বিধানের উদাহরণ? উত্তর: আষাঢ়, ঊষা, কৃষক, বৃষ্টি, দৃষ্টি, বর্ষা, কষ্ট, নষ্ট, পৌষ, সরিষা, ভাষা।
প্রশ্ন: কৃপণ, হরিণ, অর্পণ এগুলো কিসের উদাহরণ? উত্তর: ণ-ত্ব বিধানের।
প্রশ্ন: নিচের কোন শব্দে স্বভাবতই ‘ণ’-এর ব্যবহার হয়েছে? উত্তর: পাণি।
প্রশ্ন: নিপাতনে সিদ্ধ ‘ষ’-এর ব্যবহার হয়েছে কোনটিতে? উত্তর: ভূষণ।
প্রশ্ন: সমাসবদ্ধ শব্দে দুই পদের অর্থের প্রাধান্য থাকলে ণ-ত্ব বিধান ঘটে না— এরূপ ক্ষেত্রে ‘ন’ হয়। এর উদাহরণ কোনটি? উত্তর: ত্রি-নয়ন।
প্রশ্ন: কোনটি স্বভাবতই ‘মূর্ধণ্য ষ-এর উদাহরণ? উত্তর: ষড়যন্ত্র।
প্রশ্ন: তৎসম শব্দের বানানে ‘ণ’-এর সঠিক ব্যবহারের নিয়মকে কী বলা হয়? উত্তর: ণ-ত্ব বিধান।
প্রশ্ন: ‘ঋ-কার’ ও ‘ব’-এর পর ব্যবহার হয় কী? উত্তর: ষ।
প্রশ্ন: ঋ, র, ষ-এর পরে তৎসম শব্দে মূর্ধণ্য (ণ) ব্যবহূত হয়— এই সূত্রের বাইরের উদাহরণ কোনটি? উত্তর: হরিণ।

Related posts:

তোত্তে- চানের আডভেঞ্চার - তেৎসুকো কুরোয়ানাগি
লিঙ্গ : পুংলিঙ্গ , স্ত্রীলিঙ্গ এবং ক্লীবলিঙ্গ ।
ভাষা শিক্ষণের নৈপুণ্যতা
আদর্শ বলা / আদর্শ কথন
স্বরধ্বনি ও ব্যঞ্জনধ্বনির সঠিক উচ্চারণ
যুক্তবর্ণের উচ্চারণ : উষ্ট্র , রাষ্ট্র , ট্রেন , চিত্ত , বিত্ত , মত্ত , যুক্ত , রক্ত , শক্ত, যত্ন , ...
যুক্তবর্ণের উচ্চারণ : দ্বন্দ্ব , বিদ্বান , বিদ্বেষ , বদ্ধ , উদ্ধার
অনুলিখন vs শ্রুতিলিখন
কীভাবে শ্রুতিলিখন শ্রেণিকক্ষে শেখানাে যায় ?
বলা , পড়া ও লেখার ক্ষেত্রে যতিচিহ্নের যথাযথ ব্যবহার রীতি
বলা , পড়া ও লেখার ক্ষেত্রে যতিচিহ্নের যথাযথ ব্যবহার রীতি
কীভাবে শ্রুতিলিখন শ্রেণিকক্ষে শেখানাে যায় ?
অনুলিখন vs শ্রুতিলিখন
কীভাবে হাতের লেখা শেখানাে হবে
ভালাে হস্তাক্ষরের বৈশিষ্ট্য
হাতের লেখা অনুশীলনের উদ্দেশ্য
স্বরধ্বনি ও ব্যঞ্জনধ্বনির সঠিক উচ্চারণ
ভালাে কথাবার্তা শেখানাের কৌশল
আদর্শ বলা / আদর্শ কথন
শােনার অনুশীলনে বিভিন্ন কৌশলের ব্যবহার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page