বহিরাক্রমণ

💠 বহিরাক্রমণ :

◼️ প্রথম ভারত আক্রমণ করেন পারস্য সম্রাট সাইরাস ( 588-530 খ্রিষ্টপূর্বাব্দ ) , এর পরে তাঁর পৌত্র প্রথম দারিয়ুস ( 522-486 খ্রিষ্টপূর্বাব্দ ) । উত্তর – পশ্চিম ভারতের কিছু অংশ পারস্য সাম্রাজ্যভুক্ত হয় । জেরাক্সেস – এর সময় ( 465-456 খ্রিষ্টপূর্বাব্দ ) পর্যন্ত অন্তত ওই অঞ্চল পারস্য সাম্রাজ্যের বিশতম প্রদেশ – রূপে গণ্য হত ।

◼️ ‘ হিন্দু ‘ শব্দটি ( সিন্ধু নদ থেকে ) পারসিকদের অবদান । তাছাড়া মুদ্রা ব্যবস্থা , লােহার বিবিধ ব্যবহার এবং ( আরামাইক থেকে ) খরোষ্ঠী লিপির উৎপত্তির ক্ষেত্রেও পারসিক প্রভাব রয়েছে ।

◼️ ম্যাসিডােনিয়ার রাজা আলেকজাণ্ডার 329 খ্রিষ্টপূর্বাব্দের মধ্যে আফগানিস্তান সমেত সমগ্র পারসিক সাম্রাজ্য জয় করে নেন । আটক এর কাছে ওহিন্দ নাম জায়গায় সিন্ধু নদ অতিক্রম করে আলেকজাণ্ডার পাঞ্জাবে প্রবেশ করেন । তক্ষশিলার রাজা অম্ভি তৎক্ষণাৎ আলেকজাণ্ডারের সঙ্গে হাত মিলালেও ঝিলামের বিখ্যাত যুদ্ধে ( গ্রিক বিবরণে ‘ হিদাসপিসের যুদ্ধ ’ ) পৌরবদের রাজা পুরুকে হারাতে আলেকজাণ্ডারকে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছিল । পুরুর বীরত্বে মুগ্ধ আলেকজাণ্ডার তাঁকে তাঁর সাম্রাজ্য ফিরিয়ে দেন ।

◼️ পাঞ্জাবের বিভিন্ন উপজাতিদের সঙ্গে নিরন্তর সংঘর্ষে লিপ্ত গ্রিক বাহিনী মগধের বিশাল বাহিনীর কথা শুনেছিল । ইতিমধ্যেই বহু লড়াইতে পরিশ্রান্ত বাহিনী দেশে ফিরতে চাইলে আলেকজাণ্ডার শেষপর্যন্ত স্থলপথে ব্যাবিলন পৌঁছান । সেখানে 323 খ্রিষ্টপূর্বাব্দে 33 বছর বয়েসে তার মৃত্যু হয় ।

◼️ আলেকজাণ্ডারের সেনাবাহিনীর কিছু অংশ ভারতে থেকে যায় এবং পরবর্তীকালে উত্তর – পশ্চিম ও পশ্চিম ভারতের বিস্তৃত অঞ্চলে ইন্দো – গ্রিক রাজারা রাজত্ব করতেন । আলেকজাণ্ডারের সঙ্গে আগত বিবরণীকার , ভৌগােলিকরা ভারতের বিষয়ে বিশদ বিবরণ লিপিবদ্ধ করে গেছেন । তাই বলা হয় যে , আলেকজাণ্ডারের ভারত আগমনের ফলে ভারতে ঐতিহাসিক যুগের সূচনা ঘটে । নাটক থেকে খাদ্যাভ্যাস — ভারতীয় সংস্কৃতির বিভিন্ন বিষয়ে গ্রিক বা যবনদের গভীর প্রভাব পড়েছিল ।

Related posts:

বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানীদের জীবন কথা
পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারী : 2024
চন্দ্রযান-3 : চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণকারী প্রথম দেশ ভারত
GENERAL STUDIES : TEST-2
GENERAL STUDIES : 1
কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স: 8ই সেপ্টেম্বর
'জ্ঞানচক্ষু' গল্পের নামকরণের সার্থকতা বিচার করো।
তপনের জীবনে তার ছোটো মাসির অবদান আলোচনা করো।
সমান্তরাল আলোকরশ্মিগুচ্ছ বলতে কী বোঝ ?
আলোকরশ্মিগুচ্ছ বলতে কী বোঝায় ? এটি কয়প্রকার ও কী কী ?
একটি সাদা কাগজকে কীভাবে তুমি অস্বচ্ছ অথবা ঈষৎ স্বচ্ছ মাধ্যমে পরিণত করবে ?
ঈষৎ স্বচ্ছ মাধ্যম কাকে বলে ? উদাহরণ দাও ।
অস্বচ্ছ মাধ্যম কাকে বলে ? উদাহরণ দাও ।
স্বচ্ছ মাধ্যম কাকে বলে ? উদাহরণ দাও ।
অপ্রভ বস্তুও কি আলোর উৎস হিসেবে কাজ করতে পারে?
বিন্দু আলোক - উৎস কীভাবে পাওয়া যেতে পারে ?
বিন্দু আলোক - উৎস ও বিস্তৃত আলোক - উৎস কী ?
অপ্রভ বস্তু কাকে বলে ? উদাহরণ দাও ।
স্বপ্নভ বস্তু কাকে বলে ? উদাহরণ দাও ।
দিনেরবেলা আমরা ঘরের ভিতর সবকিছু দেখতে পাই , কিন্তু রাত্রিবেলা আলোর অনুপস্থিতিতে কোনো জিনিসই দেখতে পা...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page